মঙ্গলবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আশ্বিন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ফরিদগঞ্জে যুবদলের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ ককটেল বিস্ফোরণ,আহত ১০

চাঁদপুর প্রতিনিধি


চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে নেতাকে বক্তব্য দিতে না দেওয়ায় দুই পক্ষের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ১০ নেতা-কর্মী আহত হয়েছে।

শনিবার বিকালে ফরিদগঞ্জ উপজেলার সুবিদপুর পশ্চিম ইউনিয়নের শোল্লা আশেক আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের সম্মেলন কক্ষে উপজেলা যুবদলের নেতাকর্মীদের মাঝে এ ঘটনা ঘটে।

আহতদের ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

যুবদলের একাধিক নেতা জানান, দীর্ঘ বছর পর ফরিদগঞ্জ উপজেলা ও পৌর যুবদলের সম্মেলনের ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। সম্মেলনে চাঁদপুর জেলা যুবদলের সভাপতি মানিকুর রহমান মানিক, সাধারণ সম্পাদক নুরুল আমিন খান আকাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল গাজী বাহার ও ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সমন্বয়ক এম এ হান্নান উপস্থিত ছিলেন।

নেতাদের উপস্থিতিতে পৌর যুবদলের সভাপতি প্রার্থী ইমাম হোসেন ও নাজিম ভূঁইয়ার সমর্থকরা ককটেল বিস্ফোরণ ও চেয়ার ছোড়াছুড়ি করেন।

উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক মহসিন মোল্লা বলেন, “সম্মেলনের সবকিছুই ঠিক ছিল। সঠিক সময়ে সম্মেলন শুরু হয়। আমি সম্মেলনের সভাপতি ছিলাম। সঞ্চালক ছিলেন পৌর যুবদলের আহ্বায়ক ইমাম হোসেন।

“বক্তব্যের জন্য নাম ঘোষণা করছিলেন ইমন। এ সময় বক্তব্যের জন্য পৌর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক ও বর্তমানে সভাপতি প্রার্থী নাজিম ভূঁইয়ার নাম ঘোষণা না করলে সংঘর্ষ শুরু হয়।” উদ্ভূত পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ায় বাধ্য হয়ে সম্মেলন স্থগিত করা হয়েছে। সংঘর্ষে ৭-৮ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। বাকিরা প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন। তবে আহতের নাম জানা যায়নি।

ফরিদগঞ্জ থানার ওসি মো. আব্দুল মান্নান বলেন, “যুবদলের সম্মেলন করা নিয়ে আমাদের কাছ থেকে কোনো অনুমতি নেওয়া হয়নি। আমরা সম্মেলন সম্পর্কে জানতামও না। তবে সংঘর্ষের খবর পেয়েছি।”

Comments are closed.

More News Of This Category