শুক্রবার, ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফার্মেসির ওষুধ চুরি করে চাকরি হারান মিল্টন সমাদ্দার

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ জানিয়েছেন, নিজের বাবাকে পেটানোর পর এলাকা থেকে বিতাড়িত হয়ে ঢাকায় চলে আসেন মিল্টন সমাদ্দার। ঢাকায় এসে তিনি একটি ফার্মেসিতে চাকরি শুরু করেন। তবে ফার্মেসি থেকে ওষুধ চুরি করায় তাকে সেখান থেকেও বের করে দেওয়া হয়।এরপর সে কিছু পড়াশোনা করে। পরে মিঠু হালদার নামে এক নার্সকে বিয়ে করে।

বুধবার (১ এপ্রিল) রাত পৌনে ৯টার দিকে ডিবির প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান তিনি।

তিনি বলেন, তার চিন্তায় আসলো সে একটা ওল্ড এজ কেয়ার চালু করবে। পরে স্ত্রীকে নিয়ে মিরপুরে চাইল্ড অ্যান্ড ওল্ড এজ কেয়ার নামে একটা প্রতিষ্ঠান চালু করে। সেখানে বাচ্চা ও বৃদ্ধদের নিয়ে আসে। আপনারা দেখেছেন ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যে, সেখানে অপারেশন থিয়েটার আছে। মানুষ সেখানে বিভিন্ন সেবা নেয়। কিন্তু অপারেশন থিয়েটার থাকতে হলে লাইসেন্স প্রয়োজন যা তার নেই। এ ছাড়া সে মরদেহ রাতে দাফন করে এবং চিকিৎসকের স্বাক্ষর জাল করে নিজেই ডেড সার্টিফিকেট দেয় যা সে স্বীকার করেছে।

তিনি আরও বলেন, তার বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ। আমরা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করব। লাশগুলো রাতে দাফন করেছে কেন, ডেড সার্টিফিকেট নিজে কেন তৈরি করেন। এ ছাড়া তার প্রতিষ্ঠানে থাকা ব্যক্তির স্বজনদের সে টর্চারসেলে নিয়ে পিটিয়েছে। এগুলো জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

হারুন অর রশীদ বলেন, মিল্টনের বিরুদ্ধে আমরা অজস্র অভিযোগ পেয়েছি।তিনি বলেছেন তার দুইটা আশ্রম রয়েছে। সাভারের আশ্রমে ৫ থেকে ৭০০ লোক রয়েছেন। কিন্তু খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সেখানে ২০ থেকে ৩০ জনের বেশি লোক নেই। কিছু অভিযোগকারী রয়েছেন, তারা মামলা করবেন।

তিনি বলেন, মিল্টনকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করবো তিনি কত সংখ্যক মানুষের কাছে চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন। তার আশ্রমে থাকা কত মানুষ মারা গেলো। আশ্রমে যে অপারেশন থিয়েটার রয়েছে, এর মাধ্যমে কিডনি বিক্রি করেছেন কি না সেটিও তদন্ত করা হবে।

ডিবিপ্রধান আরও বলেন, মিল্টন সমাদ্দার নিজেই কেন ডেথ সার্টিফিকেট নিজের স্বাক্ষরে তৈরি করেছেন এবং সেখানে চিকিৎসকের কোনো সই নেই, সেগুলো খুঁজে বের করা হবে। আমরা সবকিছু তদন্ত করে পরবর্তী সময়ে আপনাদের জানাবো। আমরা তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ পেয়েছি, সেগুলো তদন্ত করে তাকে রিমান্ডে নিয়ে পরবর্তী বিষয়গুলো জানাবো।

এখন যারা আশ্রমে রয়েছে তাদের কার্যক্রম চলবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মিল্টনের লোকজন সেখানে রয়েছে, স্বাভাবিকভাবেই আশ্রমের কার্যক্রম চলবে।

এর আগে রাত ৮টার দিকে পাইকপাড়ার ওই প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালায় ডিবি। এদিন সন্ধ্যায় মানবতার ফেরিওয়ালার মুখোশের আড়ালে ভয়ংকর সব প্রতারণার অভিযোগ ওঠা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের পরিচিত মুখ মিল্টন সমাদ্দারকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এর আগে গত ২৫ এপ্রিল একটি পত্রিকার প্রিন্ট ভার্সনে ‘মানবিক মুখোশের আড়ালে ভয়ংকর মিল্টন সমাদ্দার’ শিরনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়।

Comments are closed.

More News Of This Category