রবিবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম জমা দিলেন ওচমান গণি পাটওয়ারী


 চাঁদপুর জেলা পরিষদ নির্বাচন 


বিশেষ প্রতিবেদক :
আসন্ন চাঁদপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ ও জমা দিয়েছেন জেলা পরিষদের প্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও বর্তমান প্রশাসক আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী।

রবিবার (৪সেপ্টেম্বর) সকালে ঢাকার ধানমন্ডি আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর কার্যালয়ে জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী। পরে বিকেলে তা পূরণ করে জমাও দিয়েছেন তিনি। এ সময় তার সাথে ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক শাহ আলম মিয়া।

দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ ও জমা দিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী গণমাধ্যমকে প্রদত্ত এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, বিগত জেলা পরিষদ নির্বাচনে চাঁদপুরে চূড়ান্তভাবে কাউকে মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। আওয়ামী লীগের একজন কর্মী হিসেবে আমি সেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে জনপ্রতিনিধিগণের মূল্যবান ভোট ও জেলাবাসীর দোয়া-সমর্থনে নির্বাচিত হই। আমাদের মেয়াদ পূর্তির পর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদেরকে ৬ মাসের জন্য প্রশাসক মনোনীত করেন।

তিনি আরও বলেন, চাঁদপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে পরিষদে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে আমি আন্তরিকতার সাথে আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করেছি। আমাদের বিগত পরিষদের দায়িত্বকালীন সময়ে চাঁদপুর জেলা পরিষদ জেলা বাসীর কাছে আস্থা ও বিশ্বাসের জায়গা হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছে। বিগত দিনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে ধারণ করে জননেত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্ব ও নির্দেশনার মাধ্যমে কাজ করে আসছি। নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনের শেষ সময় পর্যন্ত আমি এবং আমার পরিষদ জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের পাশে ছিলাম, তাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেয়ার চেষ্ঠা করেছি। সমগ্র জেলা ব্যাপী মেধাবী অসহায় ও অসচ্ছল ছাত্রছাত্রীদের মাঝে শিক্ষা উপকরন ও নগদ অর্থ, চেক বিতরন করেছি। জাতির পিতার আর্দশকে ছড়িয়ে দিতে ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী বইটি বিতরন করেছি। অসহায়, দুস্থ্য, রোগী, কর্মহীন, গরীব মানুষের মাঝে আর্থিক সহায়তা দিয়েছি। পরিষদ থেকে পুরো জেলায় প্রায় সকল স্কুলে শহীদ মিনার নির্মান করেছি। জেলার বিভিন্ন উপজেলা পর্যায়েও মসজিদ, মন্দির,উপাসনালয়, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে আমরা অনুদান দিয়েছি। সাধারন মানুষকে শতভাগ সেবা দেওয়ার মানসিকতা নিয়ে কাজ করেছি। চাঁদপুর জেলা পরিষদের এই সফল কর্মকাণ্ডের সবচেয়ে বড় অংশীদার আমার পরিষদের সদস্য এবং কর্মকর্তাগণ। তাঁদের সহযোগীতার মনোভাব ছিলো বলে এবং তাদের কর্মদক্ষতার কারনেই আমরা সরকারের এতসব উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন করতে পেরেছি।আমার দৃঢ় বিশ্বাস, আমার আন্তরিকতা ও কাজের মূল্যায়নস্বরূপ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রদান করবেন। নেত্রী আমাকে মনোনয়ন দিলে ও আমি নির্বাচিত হলে আগামী সংসদ নির্বাচনে জেলার ৫টি আসন জননেত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দেওয়ার লক্ষ্যে দলের সকল নেতৃবৃন্দকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবো।

Comments are closed.

More News Of This Category